ভারি বর্ষণে গাইবান্ধার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬

ভারি বর্ষণে গাইবান্ধার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

জেলা প্রতিনিধি ৭:৩১ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০১৬

ভারি বর্ষণে গাইবান্ধার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

ভারি বর্ষণে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে বিভিন্ন ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে গেছে। ভেসে গেছে শতাধিক পুকুরের মাছ। সড়ক ধসে যাওয়ায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে উপজেলা সদরের সাথে তারাপুর ইউনিয়নবাসীর যোগাযোগ ব্যবস্থা।

সুন্দরগঞ্জ পৌর শহরের বাসিন্দা এমরান আলী জানান, গত তিন দিনের ভারী বর্ষণে শহরের সাবেক পোস্ট মাস্টার সুলতান আহম্মেদের বাড়ির নিকট মীরগঞ্জ-চৈতন্য বাজারগামী পাকা সড়ক ও লাটশলার বাজার থেকে খোদ্দাগামী কাঁচা রাস্তা ধসে যাওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার উপক্রম হয়েছে। বেলকা বাজারের পাকা সড়কের উপর হাঁটু পানি জমে গেছে।

উপজেলার বেলকা গ্রামের কৃষক আশরাফুল ইসলাম জানান, ভারি বর্ষণের ফলে নিম্নাঞ্চলের ধান-পাট, শাক সবজি ক্ষেত ও আমনের বীজ তলা পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এতে করে বিভিন্ন ফসলের ক্ষেত পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় অনেক কৃষকরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

সুন্দরগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম জানান, এখন পর্যন্ত ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি। তবে ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করতে সংশ্লিষ্ট উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উপজেলার তারাপুর গ্রামের ব্যবসায়ী আব্দুল মান্নান জানান, সম্প্রতি তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়া ও ভারি বর্ষণে পানির ঢলে মীরগঞ্জ-চৈতন্য বাজার পাকা সড়কের প্রায় ২৫ ফুট ধসে গিয়েছে। এতে উপজেলা সদরের সাথে তারাপুর ইউনিয়নবাসীর যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়ায় প্রায় সকল ধরনের ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ হয়ে গেছে।

এছাড়া সুন্দরগঞ্জ-রংপুর গ্রামীণ হাইওয়ে সড়কের বামনডাঙ্গা হল মোড়ের কাছে রাস্তার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ার রাস্তাটি ভেঙে গেছে।

সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) হাবিবুল আলম পরিবর্তন ডটকমকে জানান, বালাপাড়া সড়ক ধসে গেছে। এছাড়াও বামনডাঙ্গা পাকা সড়কের ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

এএইচএ/এসএফ/একে