শেষ ইচ্ছা পূরণ হয়নি প্রিয়াঙ্কার নানীর

ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬

শেষ ইচ্ছা পূরণ হয়নি প্রিয়াঙ্কার নানীর

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:৩৭ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০১৬

শেষ ইচ্ছা পূরণ হয়নি প্রিয়াঙ্কার নানীর

শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী সমাহিত করা যায়নি বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার নানী মেরি জন আকুরিকে। ভিন্নধর্মীকে বিয়ে করার কারণেই এ বিপত্তি।


এনডিটিভি জানায়, কেরালায় মেরির বাড়ির কাছাকাছি অবস্থান সেন্ট জনস আত্মামঙ্গলাম চার্চের। বাবার নকশা করা ওই চার্চে শৈশবে খ্রিষ্টীয় রীতিতে মেরির দীক্ষা হয়। অথচ শেষকৃত্যের জন্য অনুমতি দেয়নি চার্চ। পরে ৪৫ কিলোমিটার দূরে একটি চার্চের কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।

বিষয়টিকে ‘ভীতিকর’ উল্লেখ করে প্রিয়াঙ্কা জানান, ওই ঘটনার দিকে তাদের মনোযোগ নেই। কারণ তারা পরিবারের একজনকে হারিয়েছেন।

মূলত একজন হিন্দুকে বিয়ে করার জন্য কবর দিতে অস্বীকৃতি জানায় চার্চ কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবি, মেরি বিয়ের পরে চার্চের সদস্য হওয়ার জন্য লিখিতভাবে পুনরায় আবেদন করেননি।

তবে তার এক আত্মীয় জানান, মেরি কনফেশন করেছিলেন। এমনকি মৃত্যুর দুই সপ্তাহ আগে চার্চের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন। চার্চের নিষেধাজ্ঞাকে মধ্যযুগীয় আচার বলে উল্লেখ করেন মেরির ওই আত্মীয়।

পরিবারের আরেক সদস্য জানান, প্রিয়াঙ্কা বড় হয়েছিলেন মেরির কাছে। তাদের মধ্যে সম্পর্ক খুবই গভীর ছিল।

সেন্ট জনস আত্মামঙ্গলাম চার্চে বিখ্যাত চিত্রকর রাজা রবি ভার্মার একটি ছবি আছে। যা মেরির পরিবারের উপহার দেওয়া। অথচ সেই চার্চের কবরস্থানে বাবার পাশে ঠাঁই হলো না তার।

এদিকে চার্চের ট্রাস্টি আব্রাহাম জানান, খ্রিস্টান হয়ে হিন্দুকে বিয়ে করায় কবর দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি। জীবিত অবস্থায় মেরি যদি আবেদন করতেন তবে এ সমস্যা হতো না।

স্বাধীনতা সংগ্রামী ও সমাজকর্মী মেরি জন আকুরি ৩ জুন মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর।

ডব্লিউএস/এমডি