মোহাম্মদ আলীর জানাজায় লাখো ভক্ত

ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬

মোহাম্মদ আলীর জানাজায় লাখো ভক্ত

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ, জুন ১০, ২০১৬

মোহাম্মদ আলীর জানাজায় লাখো ভক্ত

শেষ বিদায়ের আগে মোহাম্মদ আলীর প্রতি ইসলামিক নিয়মে প্রার্থনা জানাচ্ছেন তার ভক্তরা। যুক্তরাষ্ট্রের লুইসভিলে, আলীর জন্মস্থানে তার নামাজে জানাজায় হাজির হয়েছেন অসংখ্য মানুষ।

কবরে শায়িত হয়ে আজই ভক্তদের চোখের আড়ালে যাবেন মুষ্টিযুদ্ধের এই কিংবদন্তি খেলোয়াড়। দুইদিন ব্যাপী যে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া চলছে তারই অংশ হিসেবে এই প্রার্থনার আয়োজন করা হয়। পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, ইসলামিক রীতিতে শুক্রবারের এই প্রার্থনাটি মোহাম্মদ আলীর ইচ্ছেনুযায়ী করা হচ্ছে। প্রায় এক বছর আগেই আলী শেষকৃত্যের বিষয়ে নিজেই সব ঠিক করে গিয়েছিলেন।

শেষকৃত্যে যুক্তরাষ্ট্রের মুসলমানদের অনেকেই অংশ নিয়েছেন, অনেকেই টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার দেখছেন। ১৯৬৪ সালে মোহাম্মদ আলী ইসলাম ধর্ম গ্রহণের আগে নাম ছিল ক্যাসিয়াস ক্লে। দুইদিন ব্যাপী আয়োজিত শেষকৃত্য শুক্রবার শেষ হচ্ছে। আলীর শেষকৃত্যে অংশ নিচ্ছেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনেতারাসহ নানা শ্রেণীপেশার মানুষ। এদের মধ্যে রয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগানসহ অনেকে। তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মেয়ের গ্রাজুয়েশনের কারণে মোহাম্মদ আলীর বিদায়বেলায় উপস্থিত থাকতে পারছেন না।

এই কিংবদন্তির শেষকৃত্যে যুক্তরাষ্ট্রের মুসলমানদের অনেকেই অংশ নিয়েছেন। বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলেও শেষকৃত্যানুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছে। অংশগ্রহণকারি অনেকেই জানিয়েছেন, তারা মনে করেন এই প্রার্থনা অনুষ্ঠান আমেরিকার কাছে ইসলাম ও তার চর্চাকে পরিচিত করে তুলবে। ১৯৬৪ সালে খ্রিস্টান ধর্ম ত্যাগ করে মুসলমান হন মোহাম্মদ আলী। শুধু নিজেই মুসলমান হননি, ইসলামের বাণী প্রচারের তিনি মাধ্যমে এর ছায়াতলে এনেছিলেন প্রায় ২০ লাখ মানুষকে।

গত ৩ জুন ৭৪ বছর বয়সে মারা যান মোহাম্মদ আলী। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকির এই লুইসভিলেই ১৯৬১ সালে মোহাম্মদ আলীর লড়াই দেখতে টিকেট কেটেছিলেন প্রায় ১৪ হাজার মানুষ। সময়ের স্রোতে সব কিছুই হারিয়ে যায়! যে মানুষটিকে নিয়ে ভক্তদের মনে এই সুখস্মৃতি, এর সাথে যোগ হচ্ছে তার চিরবিদায়ের কষ্টকরদৃশ্যটিও। তবে ইতিহাসের পাতায় চিরদিনের জন্য গাঁথা থাকবে, মুষ্টিযুদ্ধের মহানায়ক মোহাম্মদ আলীর নাম।

কেবিএ/এমডি