মায়ের হাতে খুন নেহাল, মামলা করবেন বাবা!

ঢাকা, ১৯ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

মায়ের হাতে খুন নেহাল, মামলা করবেন বাবা!

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৫:৫৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৯, ২০১৬

মায়ের হাতে খুন নেহাল, মামলা করবেন বাবা!
রাজধানীর উত্তরখানে দেড় বছর বয়সী শিশু নেহাল সাদিককে হত্যার ঘটনায় বাবা সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেন শিশুটির মা মুক্তি বেগমকে আসামি করে একটি মামলা করবেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ মামলা করার কথা।

 

উত্তরখান থানার অপারেশন অফিসার মো. আলমগীর হোসেন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, শিশু নেহাল হত্যার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। শিশুটির বাবা সাজ্জাদ তার স্ত্রী মুক্তিকে আসামি করে মামলাটি করবেন।

ওই কর্মকর্তা আরো বলেন, ঘটনার দিনই শিশুটির মা মুক্তিকে আটক করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। বর্তমানে চিকিৎসার জন্য মুক্তিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নাক, কান ও গলা বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। তাকে পুলিশি পাহারায় রাখা হয়েছে।

হত্যার দিনের ঘটনাস্থলের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন,  সোমবার রাত ১২টার দিকে খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর শিশুটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখি। তার পেটের ডান পাশে ব্লেড, ছুরি বা ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছে।

তিনি বলেন,  ওই দিন মা মুক্তিকে আটকের পর দেখা যায় তার গলায় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে মুক্তি মাদকাসক্ত। সন্তানকে হত্যার পর তিনি আত্নহত্যা করতে চেয়েছিলেন।     

অন্যদিকে শিশু নেহালের লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রয়েছে। সেখানে তার বাবাসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা রয়েছেন।

নেহাল হত্যার বিষয়ে কথা হয় নেহালের ফুপু নাসরিন সুলতানার সঙ্গে। তিনি পরিবর্তন ডটকমকে বলেন,  মুক্তি ও সাজ্জাদের দু’জনেরই এটি দ্বিতীয় বিয়ে। চার বছরে সংসারে ঝগড়া একদিনও থেমে থাকেনি। মুক্তি প্রতিনিয়ত নেশা করত এবং অস্বাভাবিক চলাফেরা করত। এই নিয়ে ঝগড়া। ঘটনার দিনও তাদের মধ্যে ঝগড়া হয় এবং সাজ্জাদ মুক্তিকে তালাক দেবে বলে হুমকি দিয়ে বাসা থেকে বেরিয়ে যান। পরে ক্রোধবশত মু্ক্তি নেহালকে হত্যা করে নিজেও আত্নহত্যার চেষ্টা করে।

মামলার ব্যাপারে নাসরিন বলেন, নেহালের লাশ আজিমপুরে দাফন করা হবে। দাফনের পরে আমরা থানায় যাব মামলা করতে।

সাজ্জাদ উত্তরায় একটি দোকানে বিক্রয়কর্মীর কাজ করেন। তিনি পরিবর্তনে ডটকমকে বলেন,  সোমবার রাতে অফিস থেকে বাসায় ফিরে স্ত্রী ও ছেলেকে তিনি বিছানায় রক্তাক্ত অবস্থায় পেয়েছেন। নেহালের পেটে ধারালো কিছু দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। মুক্তির গলায় কাটা জখম রয়েছে।

সাজ্জাদের অভিযোগ, মুক্তি মাদকাসক্ত। মুক্তিই আমার ছেলেকে হত্যা করেছে।

সোমবার সন্ধ্যায় উত্তরখানের মাস্টার পাড়া এলাকার নিজ বাসায় হত্যার শিকার হয় শিশু নেহাল। রাতে খবর পেয়ে পুলিশ ওই বাসায় গিয়ে নেহালের লাশ উদ্ধার করে এবং মুক্তিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

আরটি/এসজে

 

 

 

আইন ও অপরাধ: আরও পড়ুন

আরও