জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেওয়া হয়েছে বাবুলকে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেওয়া হয়েছে বাবুলকে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৫, ২০১৬

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেওয়া হয়েছে বাবুলকে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

চট্টগ্রামে আলোচিত মাহমুদা খানম মিতু হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় স্বামী এসপি বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বাবুলকে তার শ্বশুরবাড়ি থেকে নিয়ে যাওয়ার ১০ ঘণ্টা পর শনিবার সকালে এ তথ্য জানালেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, গ্রেফতার কয়েকজন আসামির সামনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বাবুলকে।

তবে বাবুলকে কতক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে কিংবা বাবুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে কিনা, বা তাকে কেন জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে এ সব প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, এখনও বলার সময় হয়নি। শিগগিরই সব কিছু জাননো হবে। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, সঠিক অপরাধীকে আইনের আওতায় আনতেই এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ধুম্রজালের কোনো সুযোগ নেই।

শুক্রবার রাত সোয়া ১২টার দিকে বাবুলের শ্বশুর বাড়ি খিলগাঁও মেরাদিয়া ১২০ নম্বর বাসা থেকে তাকে মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়েছে।

বাবুল আক্তারের শ্বশুর মোশাররফ হোসেন জানান, রাতে তার খিলগাঁর বাসা থেকে ডিবির লোকজন বাবুল আক্তারকে নিয়ে গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, একটি কালো গ্লাসের নোয়া গাড়িতে করে ডিবির জ্যাকেট পরিহিত ৫ জন সদস্য বাবুল আক্তারকে নিয়ে গেছে।

প্রসঙ্গত, গত ৫ জুন চট্টগ্রাম নগরীর জিইসির মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুল বাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাত ও গুলিতে খুন হন পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু।

মিতু হত্যাকাণ্ডের পর বাবুল আক্তার বাদী হয়ে মামলা করেন। প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা ছিল- জঙ্গিবাদ বিরোধী অভিযানে বাবুলের সফলতার কারণে তারাই এ হত্যাকাণ্ড ঘটাতে পারে।

তবে সম্প্রতি মিতু হত্যায় সরাসরি জড়িত সন্দেহে আবু মুছা (৪৫) ও এহতেশামুল হক ভোলা (৩৮) নামে দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। এরা দু’জনই এসপি বাবুল আক্তারের সোর্স হিসেবে কাজ করতেন। ধারণা করা হচ্ছে, তৃতীয় কোনো পক্ষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে ভাড়াটে খুনি হিসেবে তারা মিতুকে হত্যা করেছে অথবা সাহায্য করেছে।

এসডি/এমডি

এসপি বাবুল আক্তারকে নিয়ে গেছে ‘ডিবি’